শরীয়তপুরে কালবৈশাখী ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত বিধবা চান সরকারি সহায়তা

 প্রকাশ: ২১ মে ২০২২, ১০:৩০ অপরাহ্ন   |   জনদুর্ভোগ






জেলা প্রতিনিধি শরীয়তপুর :  শনিবার (২১ মে) ভোর সকাল। সূর্য না উঠতেই হঠাৎ পশ্চিম আকাশে দেখা দেয় কালো মেঘ। মুহূর্তেই প্রচন্ড গতিতে বাতাস বইতে থাকে। এ আর কিছু নয়, এ হচ্ছে কালবৈশাখী ঝড়। এ কাল বৈশাখী ঝরে রাস্তার একটি গাছের বড় ডাল ভেঙ্গে পড়ে বিধবা জবেদা বেগম (৬৫) ঘরের চালের উপর। তিনি প্রাণে বেঁচে গেলেও ক্ষতিগ্রস্ত হয় ঘরের চাল টি। 


বিধবা জবেদা বেগম জাজিরা ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের মনির উদ্দিন সরদার কান্দি এলকার মৃত রমিজউদ্দিন বেপারীর স্ত্রী। 


বিধবা জবেদা বেগম জানান, ছেলেদের আর্থিক অবস্থা তেমন একটা ভাল না, তাই স্বামীর মৃত্যুর পর বাড়ি বাড়ি ঝিয়ের কাজ করে নিজের সংসার চালিয়ে, একাই পড়ে আছি স্বামীর ভিটায়। এখন বয়স হয়েছে তেমন একটা কাজও করতে পারিনা। এলাকাবাসী যে সাহায্য-সহযোগিতা করে, তাই দিয়ে চলে আমার অভাবের সংসার। আজ সকালের ঝড়ে, হঠাৎ গাছের বড় একটি ডাল ভেঙ্গে আমার ঘরের চাল সহ আমার ছেলে জুলহাস বেপারীর ইজিবাইক রাখার ঘরের চালের উপরে পরলে, চাল দুটি ভেঙে দুমড়ে-মুচড়ে যায়। আমাদের এই ঘর মেরামত করার মত কোন সামর্থ্য নেই। ঘর মেরামত করতে না পারলে ঝড়-বৃষ্টিতে এ ঘরে থাকা খুবই মুশকিল হবে। তাই স্থানীয় জনপ্রতিনিধি সহ সরকারের কাছে আমার আকুল আবেদন, আমার ঘরটা যেন মেরামত করার ব্যবস্থা করেন। তা না হলে আমার এ ঘরে থাকা খুবই মুশকিল হবে। তিনি কান্নাজড়িত কণ্ঠে আরো বলেন, তোমরা আমারে সাহায্য কর, আমার ঘর ঠিক কইরা দাও। আমি কেমনে থাকবো এই ঘরে।


জাজিরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কামরুল হাসান সোহেল বলেন, ঝড়ে বিধবার ঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, এ বিষয়টি আমার জানা ছিল না। এ বিষয়ে আবেদন করলে আমরা দুর্যোগ ও ত্রাণ ব্যবস্থাপনার আওতায়  তাকে সহযোগিতা করবো।

জনদুর্ভোগ এর আরও খবর: