গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে ২৯জন আ.লীগ নেতাকর্মীকে কারণ দর্শানো নোটিশ

 প্রকাশ: ০৪ নভেম্বর ২০২১, ০১:৫৪ অপরাহ্ন   |   মুকসুদপুর


 কাজী ওহিদ, মুকসুদপুর,

ইতিমধ্য ৬জন ভুল স্বীকার করে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে কাজ করবেন বলে নেতৃবৃন্দের কাছে অঙ্গীকার করেছে।

গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর উপজেলার আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর বিরুদ্ধে কেউ কেউ নিষ্ক্রিয় এবং কেউ কেউ সক্রিয় ভাবে  কাজ না করায়, নির্বাচনী প্রচারনায় অংশ না নেয়া এবং প্রার্থী দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে নির্বাচনের প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার কারণে ২৯জন আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীকে কারণ দর্শানো নোটিশ প্রদান করা হয়েছে। নোটিশে তিনদিনের মধ্যে জবাব দাখিল না করলে বা জবাব সন্তোষজনক না হলে তাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ আওযামী লীগের গঠনতন্ত্রের ৪৭ (ঞ) মোতাবেক দলীয় দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি প্রদান পূর্বক ৪৭ ধারা মোতাবেক দল থেকে মোতাবেক বহিস্কারের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ রবিউল আলম সিকদার জানান, ৩ নভেম্বর বুধবার সকালে মুকসুদপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে এক বিশেষ সভায় দলীয় শৃঙ্খলা ভংগের দায়ে ২৯ জন নেতা কর্মীকে শোকজ নোটিশ প্রদান করা হয়েছে। এর মধ্যে ৩ জন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন বলে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এরা হলেন মহারাজপুর ইউনিয়ের প্রার্থী সালাউদ্দীন মিয়া, গোহালা ইউনিয়নের প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগ সদস্য শাহাদাত হোসেন লিটন এবং কাশালিয়া চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি ফারুক মল্লিক।

এছাড়া দলীয় প্রার্থীর বিরোধিতা করে অন্য প্রার্থীর পক্ষে প্রচারনা, মিটিং সমাবেশে অংশ নেয়ার জন্য কারণ দর্শানো নোটিশ দেওয়া হয়েছে।  তারা হলেন পশারগাতি ইউনিয়ন সাধারন সম্পাদক কাজী মজিবুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক শওকত হোসেন পাননু, দপ্তর সম্পাদক টুটুল শেখ, সহ-সভাপতি মিরাজুর রহমান ওহিদ, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক সাহেব আলী শেখ। বহুগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মোঃ  মনির মিয়া, ৫নং ওয়ার্ডের সভাপতি বাবর আলী ফকির, সহসভাপতি ইলিয়াচ ফকির, ইউনিয়ন সেচ্চাসেবক লীগ সাধারন সম্পাদক মিকাইল ফকির, এবং ৪ নং ওয়ার্ড সাধারণ সম্পাদক মানিক আহম্মেদ হান্টু মিয়া,গোবিন্দপুরের ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক ইলিয়াস মিয়া, বাঁশবাড়ীয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি আনিচুর রহমান বতু, মহারাজপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি মোঃ শাহাদত মুন্সী,

সহসভাপতি নুরুল ইসলাম মুসা মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক মান্নান বিল বল,শ্রম বিষয়ক সম্পাদক কামরুল ফকির,সদস্য সেলিম মিয়া, সদস্য মাসুদ মিয়া, ,৮নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি জুলফিকার আলী ও সাধারন সম্পাদক রেজাউল করিম, ৯নং ওয়ার্ড সভাপতি নুরুদ্দীন সিকদার, বাটিকামারিতে উপজেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদ নুরুল ইসলাম জুন্নু, দিগনগরে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম মিঠু মোল্যা, গোহালা ইউনিয়ন আওয়ামী সহ-সভাপতি ফারুক মল্লিক,সাধারন সম্পাদক শেখ ইকবাল হোসেন, মোচনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় সম্পাদক নজরুল ইসলাম রজো, কাশালিয়া ইউনিয়নের সম্পাদক আসাদুজ্জামান নাসির, ও জলিরপাড় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সম্পাদক বিপ্লব মজুমদার। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক রবিউল আলম শিকদার জানিয়েছেন। দলীয় গঠণতন্ত্র এবং কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মোতাবেক এই প্রাথমিক ভাবে তৃণমুল থেকে প্রাপ্ত তালিকায় এই ২৯ জনকে কারণ দর্শানো নোটিশ দিয়েছেন। এর মধ্যে নোটিশের জবাব, প্রকাশ্যে ক্ষমা প্রার্থনা এবং দলীয় প্রার্থীকে জয়ী করে আনার জন্য সব

রকম কার্যক্রম চালাবেন মর্মে অঙ্গীকার করায় ৬জনকে শো কজের দায় দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। এরা হলেন-পশারগাতির কাজী মজির রহমান,শওকত হোসেন পান্নু, বাটিকামারির ডা: নুরুল ইসলাম জুন্নু এবং গোবিন্দপুরের ইলিয়াস মিয়া, বাশবাড়িয়া ইউনিযনের আনিচুর রহমান বতু।

মুকসুদপুর এর আরও খবর: