বিএনপি’র কষ্ট বাংলাদেশ কেন শ্রীলংকা ও পাকিস্তানের মতো হচ্ছে না

 প্রকাশ: ১৩ এপ্রিল ২০২২, ০৮:১০ অপরাহ্ন   |   জাতীয়




মানিকগঞ্জ প্রতিনিধিঃ-



নৌপরিবহণ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, বিএনপির কষ্ট হয়, কেন বাংলাদেশ শ্রীলংকা ও পাকিস্তানের মতো হচ্ছে না? তাদের মনের চিন্তা বাংলার মানুষ মঙ্গাপীড়িত থাকবে, অশিক্ষিত থাকবে, চিকিৎসাসেবা পাবে না এবং বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে। এগুলো করতে করতে তারা (বিএনপি) বাংলার মানুষ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। বিএনপি বাংলার মানুষকে হৃদয়ে ধারণ করে না। তারা বাংলার মানুষকে শোষণ করার জন্য রাজনীতি করে। তারা বাংলার মানুষকে বিপদে ফেলতে ষড়যন্ত্র করছে। এসব ষড়যন্ত্র থেকে আমাদের সজাগ থাকতে হবে।


বিএনপি বাংলার মানুষকে হৃদয়ে ধারণ করে না। তারা বাংলার মানুষকে শোষণ করার জন্য রাজনীতি করে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের বিস্ময়। বিশ্ববাসী উন্নয়নকাজের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে সম্মান করে।



বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার আরিচাঘাট এলাকায় প্রায় ২০ কোটি টাকা ব্যয়ে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহণ কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) আরিচা ড্রেজার বেইজের উদ্বোধনকালে তিনি এ কথা বলেন।



খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, মহামারি এই কোভিডের মধ্যে সারাবিশ্বে পাঁচটি দেশের অর্থনীতির মধ্যে বাংলাদেশও একটি অর্থনীতির দেশ। আগামী ২০৩৩ সালের মধ্যে বাংলাদেশ বিশ্বের ৩৩তম অর্থনীতির দেশ হবে। করোনার মহামারির সময়ে সারাবিশ্ব যখন থেমে গিয়েছিল, তখনও বাংলাদেশ থেমে যায়নি। এটি সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শিতার কারণে। 



নৌমন্ত্রী বলেন, পৃথিবীর সবচেয়ে বড় দার্শনিক শেখ হাসিনা। কোভিডের সময় তিনি তা প্রমাণ করেছেন। জীবন এবং জীবিকার যে দর্শন তা পৃথিবীর কেউ দিতে পারে নাই। দিয়েছেন শুধুমাত্র শেখ হাসিনা । আমরা সেই দর্শনে বিশ্বাস করি।


তিনি বলেন, আমাদের পোশাক খাতসহ অর্থনীতির ব্যাপক উন্নয়ন হচ্ছে। আগামী ১০-১৫ বছরের মধ্যে দেখা যাবে বিশ্বের ৮০ ভাগ মানুষের গায়ে মেইড ইন বাংলাদেশ থাকবে।


তিনি আরো বলেন, শেখ হাসিনা কখনো নামাজ কাজা করেননি। কখনো শুনি নাই কোনো কারণে তিনি রোজা রাখেননি। শেখ হাসিনা সাচ্চা মুসলমান। যারা ঈমানদার তারা বেঈমানের কথার উত্তর দিতে যায় না। প্রধানমন্ত্রী ঈমানদার বলেই মহান আল্লাহ তার ওপর আস্থা রেখেছেন। তার মাধ্যমে দেশে এত উন্নয়ন হচ্ছে।


গত ৪০ বছরে দেশে যে উন্নয়ন হয়েছে তার চেয়ে অনেকগুণ বেশি হয়েছে প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার শাসনামলে। জিয়া, এরশাদ, খালেদা জিয়া কোন উন্নয়ন করেনি, তারা উন্নয়নের বিষয়টি উপলব্ধি করেনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের উন্নয়নে কাজ করছেন। এজন্যই গত ১৩ বছরে বাংলাদেশ অর্থনীতিতে ইমাজিং টাইগারে পরিণত হয়েছে।




প্রতিমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশ স্বাধীনের পর নৌপথ খননের জন্য ৭টি ড্রেজার এনেছিলেন। এরপর দীর্ঘ সময় সরকারি ড্রেজার আসেনি। নৌপথ খননের লক্ষ্যে আওয়ামী লীগ সরকার ৪০টি ড্রেজার সংগ্রহ করেছে আরও ৩৫টি ড্রেজার সংগ্রহের কার্যক্রম চলমান রয়েছে।




বিআইডব্লিউটিএ'র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, মানিকগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য এ এম নাঈমুর রহমান দুর্জয়, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক শফিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নুরজাহান লাবনী, শিবালয় উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউর রহমান খান জানু ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল কুদ্দুস।


প্রতিমন্ত্রী সভাশেষ করে নৌপথে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়াঘাট এবং মানিকগঞ্জের পাটুরিয়াঘাট পরিদর্শন করেন।


উল্লেখ্যে, দ্রুত ও স্বল্প সময়ে বিআইডব্লিউটিএ'র ড্রেজারসমূহ মেরামত, সংরক্ষণ ও অপারেশনে সহায়তার লক্ষ্যে সরকার দেশে পাঁচটি 'ড্রেজার বেইজ' স্থাপন করছে। তারই অংশ হিসেবে মানিকগঞ্জের আরিচায় ড্রেজার বেইজ উদ্বোধন করা হয়। ২০২০ সালের জানুয়ারিতে আরিচায় ড্রেজার বেইজের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। এ ড্রেজার বেইজটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় ২০ কোটি টাকা। এতে তিন তলা অফিস ভবন, দোতলা স্টাফ ডরমেটরি, একটি ওয়ার্কশপ রয়েছে। আরিচায় ড্রেজার বেইজটি আরিচা এলাকাসহ রাজবাড়ি, পাবনা, সিরাজগঞ্জ এলাকায় নৌপথ খননে তদারকি সহজতর হবে।


মোঃ- আরিফুর রহমান অরি

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি

মোবাইলঃ- ০১৭৫৭৫০০৭৪৫

জাতীয় এর আরও খবর: