মায়ের সাথে প্রাইভেটের বেতন নিয়ে অভিমানে মেয়ের আত্মহত্যা।

 প্রকাশ: ০৯ এপ্রিল ২০২২, ০৭:৩৭ অপরাহ্ন   |   শোক সংবাদ



তাসনিয়া হাসান অর্পিতা, বরগুনা জেলা প্রতিনিধিঃ      বরগুনার তালতলীতে প্রাইভেটের শিক্ষকের বেতনের টাকা নিয়ে মায়ের সাথে অভিমান করে মেয়ে সিমা (১৭) আত্মহত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সকালে  গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় সিমার ঝুলন্ত লাশ পুলিশ উদ্ধার করে।


শনিবার(০৯ এপ্রিল) সকাল ৮টার দিকে উপজেলা পূর্ব ঝাড়াখালী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। মৃত্যু সিমা উপজেলার পূর্ব ঝাড়াখালীর খালেক আকন্দের মেয়ে।


পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, সিমা তালতলী সরকারি কলেজে দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থ ছিলো। আর্থিক সংকটে নিয়মিত ক্লাস করতে না পারায় প্রাইভেট পড়তো ঐ কলেজের এক শিক্ষকের কাছে। সিমা প্রাইভেট শিক্ষকের বেতনের টাকা দিতে পারছিলো না কয়েক মাস যাবৎ। মা' য়ের নিকট প্রাইভেট শিক্ষকের বেতনের টাকা চাইলে  সিমার বাবা দিনমজুরের কাজ করায় টাকা দিতে কিছুদিন সময় চায়। আজ শনিবার  প্রাইভেটের টাকা নিয়ে সকালে সিমা ও তার মায়ের ভিতরে কথার কাটাকাটি হয়। পরে মায়ের সাথেু অভিমান নিজ ঘরের আড়ার সাথে ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। পরে তালতলী পুলিশের একটি টিম গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় সিমার লাশ উদ্ধার করে।


সিমার মা বলেন, আমরা গরিব আমাদের সংসার তবুও মেয়েকে লেখাপড়ার জন্য চেষ্টা করেছি। প্রাইভেটের টাকার জন্য আমার সাথে একটু মনোমালিন্য হয় । তবুও প্রাইভেটের ৫'শ টাকা আমি দিয়েছি কষ্ট করে। এর পরে মেয়ে কলেজে না গিয়ে আত্মহত্যা করেন।


তালতলী সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুর রহমান বলেন, সীমা বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী ছিল। তবে সে নিয়মিত ক্লাসে আসতো না। তাছাড়া কোন শিক্ষকের কাছে প্রাইভেট পড়ত সেটা আমার জানা নাই।। 


তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, প্রাথমিকভাবে যতোটুকু জেনেছি সেটা হলো প্রাইভেটের টাকা নিয়ে মায়ের সাথে মনোমালিন্য হয়েছে। এ কারণে হয়তোবা আত্মহত্যা করেছেন। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বরগুনা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে । এ বিষয়ে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

শোক সংবাদ এর আরও খবর: